সায়েন্স ফিকশন বুক এনিম্যান ডাউনলোড

মানুষ সাধারণত কুকুর, বিড়াল ইত্যাদি পোষা প্রাণী পুষতে ভালবাসে । কিন্তু কেমন হবে তখন, যখন লক্ষ কোটি কোটি মানব শিশু জন্ম নিবে বড় কান, হাত, পা এবং বড় বড় লোমশ শরীর নিয়ে? যাদেরকে মানুষ পোষা প্রাণীর পরিবর্তে পুষবে, যাদের একটাইই মাত্র অনুভূতি আছে, আর সেটা হলো হাসি। তাদের নাম দেয়া হয় এনিম্যান। কিন্তু আসলেই কি তারা আর কোনো অনুভূতি ফিল করেনা??
.
লিডিয়া : একজন মানুষের ভেতরটুকু সুন্দর না হলে তার বাইরের সৌন্দর্যটুকু ঠিক করে প্রকাশ পায় না। একজন মানুষের মাঝে যখন কোনো ভালোবাসা ,মায়া ,মমতা,নীতি কিংবা বিবেক থাকে না তখন তার বেঁচে থাকা খুব সোজা। যাদের ভেতরে কোন মানবতা নেই তাদেরকে কেউ থামিয়ে রাখতে পারে না কারণ তাদের ভেতর বিবেক বলে কিছু নেই। তারা বিন্দুমাত্র অপরাধবোধে ভোগে না ।লিডিয়া একজন বিবেকহীন মেয়ে যে জেনেটিক ইন্জিনিয়ারিং এর মাধ্যমে মানুষের বাচ্চাকে পরিবর্তন করে পোষা কোন প্রাণীর মত বাজারে বিক্রি করবে।যারা এতদিন বাসায় কুকুরের বাচ্ছা পোষছে তারা মানুষের বাচ্ছা পোষবে। এর জন্য সে #এপসিলন কোম্পানির সাথে যোগ দেয়,যারা কিনা বিশ্বের যে কোনো দেশ কে নিজেদের কন্ট্রোলে রাখতে পারে। একটা সময় লিডিয়ার এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হয়। তার সেই নতুন প্রানীর নাম দেয় সে এনিম্যান। এনিম্যালের এনি, হিউম্যান এর ম্যান। এনিম্যান।।
.
#তিশা: বাংলাদেশি মেয়ে, মা বাবার সাথে আমেরিকা থাকে। কিন্তু সে বড্ড একাকিত্ব অনুভব করে, তাই তার বাবা তাকে একটি কুকুর এনে দেয় পোষার জন্য, যার নাম টুইটি। একটা দূর্ঘটনায় তিশা মরতে মরতে বেঁচে ফিরতে পারে শুধুমাত্র এই টুইটির জন্য। কিন্তু টুইটি হারিয়ে যায় চিরতরে তিশার কাছ থেকে। তাই, তার একাকিত্ব কাটানোর জন্য তার স্কুল থেকে তাকে একটা #এনিম্যান গিফট করা হয়।
.
মিশকা : তিশার সেই এনিম্যান এর নাম সে মিশকা রাখে। যে সারাক্ষন হাসি হাসি মুখ করে থাকে। কিন্ত তিশা বুঝতে পারে, মিশকার হাসির পিছনে লুকিয়ে আছে বহু কষ্ট, যন্ত্রনা । যা মিশকা প্রকাশ করতে পারেনা। তিশা তার ব্লগে তার এই ধারনা সম্পর্কে লিখে। কিন্তু তিশা বুঝতেই পারলনা তার এই লেখার পরিণতি কতটা খারাপ হতে পারে।
.
জন : তিশার স্কুলের বন্ধু। যার কানে শোনার ক্ষমতা নেই, তার মানে বধির। যার সাহায্যে তিশা, এনিম্যানের জীবন রহস্য উন্মোচন করার জন্য পরিশ্রম করতেছে। এর সম্পর্কে বেশি কিছু বলা যাবে না, কারন গল্পের টুইস্ট তো এখানেই।


.

Post a Comment

0 Comments